Mirsarai





বঙ্গোপসাগরের জেলে অপহরণ মুক্তিপণ দিয়েও ফেরা হল না শাহ্ আলমের

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরতে গিয়ে গত রবিবার (২৪ আগষ্ট) জলদস্যুদের হাতে অপহরণের শিকার চার জেলের একজন শাহ্ আলম ফিরেছেন লাশ হয়ে। অন্য তিনজন অকূল সাগর সাঁতরে কোনমতে প্রাণে বেঁচে ফিরেছেন স্বজনদের কাছে। অলৌকিকভাবে প্রাণে বেঁচে যাওয়া জেলেরা ফিরেছেন সোমবার সন্ধ্যা ৭টায়। নিহত জেলের লাশ ভেসে ওঠে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায়। ঘটনাটি ঘটেছে বঙ্গোপসাগারের চট্টগ্রামের মিরসরাই এলাকায়। শাহ্ আলমের স্বজনরা জানিয়েছেন, জলদুস্যদের দাবিকৃত ৬০ হাজার টাকা মুক্তিপণ মোবাইল ব্যাংকিক (বিকাশ) এর মাধ্যমে পাঠানোর পরও মাঝ সাগরে তাকে ডুবিয়ে মেরেছে পাষন্ড জলদুস্যরা। কোষ্টগার্ড ক্যাম্প ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সাগরে মাছ ধরতে গেলে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চি‎হ্নিত জলদস্যু আনিসুল, আবছার ও হকসাবের নেতৃত্বে জেলে শাহ্ আলম (৫৫), জয়নাল আবেদীন (৬০), মো. মাসুদ (৩৫) ও জাহাঙ্গীর আলমকে (৩৭) অপহরণ করে নিয়ে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে নোয়াখালী কোম্পানী গঞ্জের চর চান্দিনা এলাকায়। ওখান থেকে অপহৃতদের স্বজনদের কাছে ৬০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। অপহরণের রাতেই তাদের স্বজনরা চারদফা মোবাইল ব্যাংকিং (বিকাশ) এর মাধ্যমে দাবিকৃত টাকা পাঠায়। মুক্তিপণের টাকা পাওয়ার পরও অজানা কারণে সোমবার দুপুরে তাদের চারজনকে সাগরে ডুবিয়ে মারার চেষ্টা করে। এতে মিরসরাইয়ের শাহেরখালী ইউনিয়নের পশ্চিম শাহেরখালি গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে শাহ্ আলম মারা যায়। তাঁর লাশ গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাগরের মোহনায় ভসে ওঠে। অলৌকিকভাবে প্রাণে বেঁচে যায় অন্যতিন জেলে। তাদের বাড়িও পশ্চিম শাহেরখালি গ্রামে। সাগর সাঁতরে প্রাণে বেঁচে যাওয়া জেলে তাজুল ইসলাম, মো. মাসুদ ও জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, ‘রবিবার তাঁরা চারজন মিলে ইঞ্জিন বোট নিয়ে সাগরে যান মাছ ধরতে। দুপুরের দিকে আরেকটি বোট এসে তাদের অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নোয়াখালী জেলার কোম্পানী গঞ্জের চর চান্দিনা এলাকায় নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে। পরে তাদের স্বজনদের মুঠোফোন নম্বর নিয়ে ৬০ হাজার টাকা দাবি করে। রবিবার চার দফা তাদের দাবিকৃত টাকা বিকাশের মাধ্যমে আদায় করা হয়। পরদিন সোমবার (২৫ আগষ্ট) দুপরে বোটে করে তাদের চারজনকে মুক্তি দেওয়া হয়। তারা জানিয়েছেন, যে বোটে করে আমাদেরকে ফিরতে দেওয়া হয় সেটি আমাদের নিজেদের বোট ছিল। বোট সাগরে ভাসার পর দেখি বোটের বিভিন্ন জায়গায় ছিদ্র করে দেওয়া হয়েছে। কিছুদূর এসে আমরা চারজন মিলে পানি সেচার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হই। একটা সময় বোটটি ডুবে যায়। এসময় আমরা আল্লাহ্র নাম নিয়ে সাগরে ঝাঁপ দিয়ে কূলে ভেড়ার চেষ্টা করি। আমরা যখন কূলে ফিরে আসি তখন দেখি শাহ্ আলম আমাদের সাথে নেই। এ প্রসঙ্গে মিরসরাই কোষ্টগার্ড ক্যাম্পের কনটিনজেন্ট কমান্ডার এম কাওছার জানান, ‘চার জেলেকে অপহরণ করেছিল ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চি‎িহ্নত জলদস্যু আনিসুল, আবছার ও হক সাহেবের নেতৃত্বে একটি জলদস্যু দল। তারা অপহরণের পর নোয়াখালীর চর চান্দিনায় জেলেদের আটকে রেখেছিল। এ ব্যাপারে সোনাগাজী থানাকে অবহিত করা হয়েছে। জলদুস্যুদের নাম পরিচয়ও শনাক্ত করা হয়েছে।’
2014-08-29 11:04:14
source : http://mirsarainews.com/?p=65